বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৮:১২ অপরাহ্ন

রাজশাহীতে দিনব্যাপি বিভাগীয় পেনশন মেলা অনুষ্ঠিত

  • প্রকাশ সময় শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২৪
  • ১৭ বার দেখা হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতীয় পেনশন কর্তৃপক্ষ ও রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় এর যৌথ আয়োজনে আজ (১৯ এপ্রিল) রাজশাহীতে সর্বজনীন পেনশন বিষয়ক বিভাগীয় পেনশন মেলা অনুষ্ঠিত হয়। সর্বজনীন পেনশন স্কিম বিষয়ে জনঅবহিতকরণ এবং এ স্কিমের সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে এ পেনশন মেলা আয়োজন করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে নগরীর হাজী মুহম্মদ মুহসীন সরকারি উচ্চবিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত ‘রাজশাহী বিভাগীয় পেনশন মেলা-২০২৪’ এর উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনীতে প্রধান অতিথি বলেন, প্রধানমন্ত্রী চিন্তা করেছেন সাধারণ মানুষ যখন অবসর গ্রহণ করবে, তখন তাদের বয়স হয়ে যাবে। তখন তারা যেন নিরাপদে ও নিশ্চিন্তে থাকে এজন্যই এই স্কিম গ্রহন। সরকারি চাকুরীজীবীদের মত রিক্সাওয়ালা, কৃষক, তাঁতী, কামার, কুমার ও এনজিওকর্মীসহ সকল বেসরকারী চাকুরীজীবী এবং সাধারণ মানুষ যাতে পেনশন পায় সেজন্য সরকার সর্বজনীন পেনশন স্কিম চালু করেছে। পেনশন মানে আপনার সুদিনের কিছু টাকা আপনি জমা করবেন, আপনার দুর্দিনে সরকার প্রতি মাসে আপনাকে টাকা দিতে থাকবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।
দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা অত্যন্ত মজবুত উল্লেখ করে তিনি বলেন, আপনি টাকা জমা না দিলে সরকারের কিছু আসে-যায় না। কিন্তু সরকার আপনাদের জন্য একটা সুযোগ করে দিয়েছে, যেন ভবিষ্যতে কেউ বিপদে না পড়ে। পেনশন স্কিমে আমার টাকা নিরাপদ কিনা- অনেকের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকারি ব্যাংকে টাকা রাখলে যেমন ফেরত পান, তেমনি এ টাকাও ফেরত পাবেন। এ টাকাও পেনশন কর্তৃপক্ষের কাছে নিরাপদ। তারা এ টাকা ব্যাংকে রাখছে, ট্রেজারি বিলে রাখছে। নিরাপদ বিনিয়োগ করে যে লাভ হবে তা থেকে আপনাদের পেনশন দেবে। সর্বজনীন পেনশন স্কিমে অংশগ্রহণকারী নিজেই দিন শেষে দেখতে পারবে তার একাউন্টে কত টাকা জমা আছে।
সর্বজনীন পেনশনের চারটি স্কিমের মধ্যে সমতা স্কিম প্রসঙ্গে তোফাজ্জল হোসেন মিয়া বলেন, যারা সবচেয়ে দরিদ্র্য মানুষ, যাদের বছরে ষাট হাজার টাকার নিচে আয়, তারা যদি মাসে পাঁচ শত টাকা জমা দেন, সরকার তাদের পক্ষে হয়ে আরও পাঁচশত টাকা ঐখানে জমা দেবেন। এভাবে বিয়াল্লিশ বছর পাঁচ শত টাকা করে জমা দিলে প্রতি মাসে পেনশন পাবে ৩৪ হাজার ৪৬৫ টাকা। টাকা জমা দিতে দিতে মারা গেলে ছেলে-মেয়েরা এককালীন টাকা পেয়ে যাবে আর পেনশন ভোগ করার পর ৭৫ বছরের আগে মারা গেলে বয়স (তার) ৭৫ বছর হওয়া পর্যন্ত তার পরিবার পেনশন পাবে।
প্রবাস, প্রগতি ও সুরক্ষা স্কিমের সুবিধা তুলে ধরে তিনি আরো বলেন, এসব স্কিমে সর্বোচ্চ চাঁদা দাতারা এখন একজন সচিব যে পেনশন পান চার চারগুণ বেশি পেনশন পাবেন। এসময় তিনি সর্বোচ্চ সুবিধা পাওয়ার জন্য আগে-ভাগে চাঁদা জমাদানের পরামর্শ প্রদান করেন। রাজশাহীতে আয়োজিত মেলার প্রশংসা করে প্রধান অতিথি বলেন, বাণিজ্য মেলা- কৃষি মেলা এই পেনশন মেলার কাছে ফেল করে গেছে এবং সারা দেশ এই মেলাকে অনুসরণ করতে পারবে।


রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতীয় পেনশন কর্তৃপক্ষের সদস্য গোলাম মোস্তফা। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি আনিসুর রহমান, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব শেখ মোহাম্মদ সলীম উল্লাহ এবং মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরী অর্থরিটির এক্সিকিউটিভ ভাইস চেয়ারম্যান ফসিউল্লাহ। অন্যান্যের মধ্যে রাজশাহী বিভাগের ৮ জেলার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারগণ, জনপ্রতিনিধিবৃন্দ, বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, এনজিও প্রতিনিধি, সাংবাদিকবৃন্দ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন ।
মেলায় বিভাগের বিভিন্ন সরকারি দপ্তর, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান, এনজিও এবং ইউডিসি’র ১২৫টি স্টলে সর্বজনীন পেনশনের বিভিন্ন স্কিমে নিবন্ধন প্রক্রিয়া, সুবিধাদি ও পেনশন সংক্রান্ত নিয়ম-নীতি বিষয়ক পোস্টার, লিফলেট ও ডকুমেন্টরি প্রদর্শণ করা হয়। মেলার উদ্বোধন পর্ব শেষে মঞ্চে সর্বজনীন পেনশন বিষয়ক গম্ভীরা প্রদর্শিত হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো নিউজ দেখুন
© All rights reserved © 2021 dailysuprovatrajshahi.com
Developed by: MUN IT-01737779710
Tuhin